আজ মঙ্গলবার,১লা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,১৫ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ,রাত ৩:২১

ব্রেকিং নিউজ

ফের প্রচারণায় নামছেন মমতা

News

অনলাইন ডেস্ক রির্পোটঃ নন্দিগ্রামের বিরুলিয়ায় আঘাতে আহত হলেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্বাচনী প্রচার কর্মসূচি অপরিবর্তিত থাকছে। সব ঠিক থাকলে ২/৩ দিনের মধ্যে প্রচারে নামতে ইচ্ছে প্রকাশ করেছেন তৃণমূল নেত্রী। এদিকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও ফের নির্বাচনী প্রচারে নামছেন। তৃণমূল সূত্রে জানা গেছে, ১৩ মার্চ পুরুলিয়ায় নির্বচনী সভা রয়েছে মমতার। বাঁকুড়ায় যাওয়ার কথা ১৪ মার্চ। ১৬ মার্চ পশ্চিম মেদিনীপুরে এবং ১৭ মার্চ পূর্ব মেদিনীপুরে সভা করার কথা রয়েছে তৃণমূল নেত্রীর।

নির্বচন কমিশনের জারি করা নির্ঘণ্ট অনুযায়ী ২৫ মার্চ প্রথম দফার ভোটপ্রচারের শেষদিন। প্রথম দফার আগে প্রচারে হাতে সময় মাত্র ২ সপ্তাহ। এই সময়ের মধ্যে কমপক্ষে ১৪টি সভা করার কথা তৃণমূল নেত্রীর।

গতকাল হাসপাতাল থেকে এক ভিডিওবার্তায় তৃণমূলনেত্রী বলেছেন, ‘আমি সভা-সমাবেশ কিছুই নষ্ট করব না। হয়তো কিছুদিন আমাকে হুইল চেয়ারেই ঘুরতে হবে। তিনি আরও বলেন, আমি আশা করি ২-৩ দিনের মধ্যে নিজের ফিল্ডে ফিরতে পারব। হয়ত পায়ের প্রবলেম থাকবে, কিন্তু ম্যানেজ করে নেব। সবার সহযোগিতা চাই।’

যদিও চিকিৎসকদের পরামর্শে এখন কিছুদিন বিশ্রাম নেয়া উচিত মুখ্যমন্ত্রীর। তাদের মতে, পা ঝোলানো অবস্থায় হুইল চেয়ারে করে ঘোরাটা ঠিক নয়, তাতে আঘাতের জায়গা ফুলে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে, চিকিৎসকের পরামর্শে ভারসাম্য রাখলে সামাল দেয়া সম্ভব।

নন্দীগ্রামের দুর্ঘটনাকে কেন্দ্র করে তৃণমূলনেত্রী সহানুভূতি কুড়নোর চেষ্টা করছেন, এখন হুইলচেয়ারে প্রচারও সেই চেষ্টারই একটা অংশ বলেই কটাক্ষ করেছেন সিপিএম বিধায়ক তন্ময় ভট্টাচার্য। তিনি বলেন, নন্দীগ্রামে এবার হাইভোল্টেজ ত্রিমুখী লড়াই। একদিকে তৃণমূল প্রার্থী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, অন্যদিকে বিজেপির প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারী। অন্যদিকে সংযুক্ত মোর্চা সমর্থিত সিপিএম প্রার্থী মীনাক্ষি মুখোপাধ্যায়। ২০১১ সালে

এ রাজ্যের বিধানসভা ভোটে অন্যতম ইস্যু ছিল নন্দীগ্রাম। একদশক পর বিধানসভা ভোটের মুখে আবারও নন্দীগ্রামের ঘটনাকে ঘিরে তোলপাড় রাজ্য রাজনীতি।

ভাটপ্রচারে রাজ্যে আবার প্রধানমন্ত্রী

ব্রিগেডের জনসভার পর ফের রাজ্যে আসছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি ১৮ মার্চ পুরুলিয়াতে ২০ মার্চ কাঁথি এবং ২১ মার্চ বাঁকুড়াতে জনসভা করবেন বলে কথা রয়েছে। বিজেপি সূত্রে এই তথ্য জানানো হয়।

প্রথম দু’দফা ভোটের কাছাকাছি জায়গাতেই জনসভার দিনস্থির করা হয়েছে। পাশাপাশি জানা যাচ্ছে, শনিবার বিজেপির কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিটি বাংলার প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত করতে বৈঠকে বসবে।

এক ভরির গহনা বাড়িও নেই মমতার

রাজ্যের এক তৃতীয়াংশ বিধায়কের সম্পত্তির পরিমাণ যখন কোটি টাকার বেশি, তখন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সম্পত্তির পরিমাণ মাত্র ১৭ লাখ টাকার কাছাকাছি। হলদিয়ায় মনোনয়নপত্র পেশের সময় ব্যক্তিগত সম্পত্তির হলফনামা জমা দেয়ার সময় সেখানেই ব্যক্তিগত এই তথ্য দিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী। জানিয়েছেন, তার গাড়ি নেই, বাড়িও নেই। নগদ টাকার পরিমাণ রয়েছে ৬৯ হাজার ২৫৫ টাকা। ব্যাংকে রয়েছে, ১২ লাখ ২ হাজার ৩৫৬ টাকা। তার কাছে যে ন্যাশনাল সেভিংস রয়েছে তার মূল্য ১৮ হাজার ৪৯০ টাকা।

মনোনয়নেপত্রে উল্লেখ রয়েছে, মমতার গহনার পরিমাণ ৯ গ্রাম ৭৫০ মিলিগ্রাম। যার মূল্য ৪৩ হাজার ৮৩৭ টাকা। পাশাপাশি চাষযোগ্য জমিও নেই তার। কোন ঋণ নেই তার। পরিবারিক সূত্রে কোন পৈতৃক সম্পত্তিও তিনি পাননি।

মমতার দুর্ঘটনা রিপোর্ট চেয়েছে নির্বাচন কমিশন

মমতা বন্দোপাধ্যায়ের দুর্ঘটনা সংক্রান্ত রিপোর্ট শনিবারের মধ্যে নির্বচন কমিশনে জমা দেয়ার জন্য পূর্ব মেদিনীপুরের জেলা প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছেন নির্বাচন কমিশন।

নির্বাচন কমিশনের অতিরিক্ত মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক সঞ্জয় বসু এই তথ্য জানিয়েছেন। ইতোমধ্যে রাজ্যের মুখ্য সচিবের থেকে ঘটনার পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট চেয়েছেন নির্বাচন কমিশন সচিবালয়। ১২ মার্চ বিকেল পাঁচটার মধ্যে এই রিপোর্ট জমা দেয়ার কথা।

ভোটের জন্য আরও আসছে কেন্দ্রীয় বাহিনী

রাজ্যে আসতে চলেছে আরও ২৮ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী। যারা ভিভিআইপিদের নিরাপত্তার দিকটি দেখবে, নির্বচন কমিশন সূত্রে এই তথ্য জানানো হয়। সূত্রটি জানিয়েছে, এই মুহূর্তে রাজ্যে আছে ২৯৫ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী। আরও ২০০ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী ধাপে ধাপে আসবে। ২৭ মার্চ প্রথম দফার রাজ্যে ভোট হবে পাঁচটি জেলার ৩০টি নির্বাচনী কেন্দ্রে। এদিন নির্বাচন কমিশন এবং রাজ্যের এডিজি আইনশৃঙ্খলা এবং ওই পাঁচটি জেলার জেলাশাসক, পুলিশ সুপার ও অবজার্ভারদের সঙ্গে প্রস্তুতিমূলক বৈঠক করেন।

     More News Of This Category